ফরিদপুরের সদরপুরে ঐতিহ্যবাহী জমিদার বাড়ি সংরক্ষনের দাবীতে মানববন্ধন

/
/
/
371 Views

ভাংগা প্রতিনিধি – ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বাইশরশি জমিদার বাড়ি টি ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করে সংস্কার ও সংরক্ষণ পূর্বক পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে স্বীকৃতি প্রদানের দাবীতে দেশে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের আয়োজনে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টায় সদরপুর উপজেলার বাইশরশি জমিদার বাড়ির সামনে সদরপুর- পুকুরিয়া আঞ্চলিক সড়কের পার্শ্বে দাঁড়িয়ে ঢাকাসহ দেশের ৩৪টি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও স্থানীয়রা অংশগ্রহণে ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধন করে।

এ সময় মানববন্ধন কারিরা ধ্বংসের হাত থেকে বাড়িটি রক্ষা করে প্রত্নতত্ত অধিদপ্তরের অধীনে নিয়ে সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণ করে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে ঘোষনা করতে হবে বলে দাবী জানায়। মানববন্ধন শেষে সদরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূরবী গোলদারের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

সদরপুর সেফটোস সভাপতি মোঃ শামীম হাওলাদার জানান, শত বছরের ঐতিহ্যবাহী জমিদার বাড়িটি সংরক্ষন ও ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষার্থে আমাদের এ মানববন্ধন। সরকারি ভাবে এ প্রতিষ্ঠানটির রক্ষনাবেক্ষণ ও পর্যটন কেন্দ্র করা হোক।

জানা যায়, ১৭ শতকের গোড়াপত্তন ইতিহাস ও ঐতিহ্যের অমলিন স্মৃতি বিজরিত বৃহত্তর ফরিদপুরের বিখ্যাত স্থানসমূহের মধ্যে বাইশরশি জমিদার বাড়ির নাম ইতিহাস ঐতিহ্যে ভরপুর রয়েছে। জমিদার বাড়িটি ৫০একর জমির উপর অবস্থিত।

এর মধ্যে জমিদার বাড়ি এর ১৮একর জমি বিভিন্ন ব্যক্তিরা দখল করে ভোগ করে আসছে। বাড়িটির মধ্যে চৌদ্দটি দ্বিতল ভবন, তিনটি দৃষ্টি নন্দিত পূজা মন্ডব, ৪টি সান বাধানো ঘাট, বাগান বাড়িসহ বিভিন্ন কারুকার্য নির্দশন রয়েছে। যা কালের সাক্ষি হয়ে দাড়িয়ে আছে। ১৯৪৭সালে দেশ বিভক্তের সময় এ অঞ্চলের জমিদাররা ভারতে চলে যেতে থাকেন। সর্বশেষ ১৯৭১সালের মহান মুক্তিযুক্তের আগেই পুরো পরিবারের লোকজন চলে যান। এর পর থেকেই বাড়িটির রক্ষানা বেক্ষণ কাজটি বন্ধ হয়ে যায়। বর্তমানে পুরো জমিদার বাড়ি পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ  ডায়াবেটিস রোগীরা কি আম খেতে পারবেন? | ফরিদপুর বার্তা

  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Linkedin
  • Pinterest

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This div height required for enabling the sticky sidebar