নামাজের রাকাত ছুটে গেলে যা করবেন.!

/
/
/
204 Views

যারা নিয়মিত মুসল্লি— তারা আগে-ভাগে মসজিদে উপস্থিত হন। ফলে জামাতে নামাজ আদায়ে তাদের কোনো অসুবিদা হয় না। তবে হতে পারে— কখনো কোনো কারণে মসজিদে আসতে দেরি হয়ে যায়। তখন দুই-এক রাকাত নামাজ ছুটে যায়।

জামাতে রাকাত ছুটে গেছে তখন করণীয় কী ? না জানলে জেনে নিন, জেনে রাখা জরুরি।

এক. প্রথম কথা হলো— জামাতে নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রে যে ব্যক্তির এক বা তার অধিক রাকাত ছুটে যায়, তাকে ‘মাসবুক’ বলা হয়। মাসবুক ব্যক্তি ইমামকে যে অবস্থায় পাবে, ওই অবস্থায়ই ইমামের সঙ্গে নামাজে শরিক হয়ে যাবে এবং যথারীতি নামাজ আদায় করবে। এটাই জামাতে নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রে মাসবুকের নিয়ম।

দুই. যদি সে প্রথম রাকাতের রুকুতে শরিক হতে না পারে, তবে ইমামের সঙ্গে বাকি নামাজ আদায় করে— শেষ বৈঠকে শুধু তাশাহহুদ পড়ে চুপ করে বসে থাকবে। এরপর ইমামের উভয় দিকে সালাম ফেরানো শেষ হলে— সে তার ছুটে যাওয়া রাকাতগুলো আদায় করে নেবে। (বাদায়েউস সানায়ে: ১/৩১৪)

তিন. যদি চার রাকাতবিশিষ্ট নামাজের জামাতে তিন রাকাত ইমামের পেছনে না পায়, তাহলে সালাম ফেরানোর পর ছুটে যাওয়া রাকাতের মধ্যে প্রথম দুই রাকাতে ফাতিহার সঙ্গে সুরা মিলিয়ে পড়বে এবং শেষ রাকাতে সুরা না মিলিয়ে শুধু ফাতিহা পড়বে। আর প্রথম রাকাতে বসে তাশাহহুদ পড়ে উঠে যাবে। এরপর দ্বিতীয় রাকাতে না বসে শেষ রাকাত পড়ে বৈঠক করবে। (রদ্দুল মুহতার : ১/৫৯৬)

চার. তিন রাকাতবিশিষ্ট নামাজের জামাতে দুই রাকাত ছুটে গেলে ইমামের সালামের পর যথারীতি উভয় রাকাতেই কিরাত সুরা মিলিয়ে পড়বে এবং প্রথম রাকাতে বসে তাশাহহুদ পড়ে উঠে যাবে। কেননা এ রাকাত বৈঠকের ক্ষেত্রে দ্বিতীয় রাকাত হিসেবে ধর্তব্য হবে। অতঃপর শেষ রাকাতে বসে সালাম ফেরাবে। (রদ্দুল মুহতার : ১/৫৯৬)

 

  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Linkedin
  • Pinterest

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This div height required for enabling the sticky sidebar